Thursday, May 25, 2017

এসএসডি সম্পর্কে যে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় গুলো আপনার জানা প্রয়োজনীয়!












কম্পিউটিং জগতে সলিড স্টেট ড্রাইভ কিন্তু এখন আর বাচ্চা প্রযুক্তি নয়, —এর প্রয়োজনীয়তা এবং জনপ্রিয়তা দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে, এ ব্যাপারে কোন সন্দেহ নেই। তাছাড়া পেছনের কয়েক বছরে এর দামও তুলনামূলক ভাবে অনেক কমে গেছে। মোটামুটি ইনস্ট্যান্ট বুট টাইম, অত্যন্ত দ্রুত গতিতে অ্যাপ্লিকেশন, গেম লোড, ফাইল ট্র্যান্সফার, কম পাওয়ার ক্ষয়ের জন্য  এসএসডি  পারফেক্ট সলিউসন। অনেকে হয়তো এটি আপনাদের সিস্টেমে লাগিয়ে ইতিমধ্যে ব্যবহার করতে শুরু করে দিয়েছেন, আবার অনেকে ভাবছেন নতুন ড্রাইভ কিনবেন; —এই আর্টিকেলে এমন কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো, যেগুলো আপনাদের সকলেরই জানা প্রয়োজনীয়। আর আপনার কাছে যদি এখনো “ সলিড স্টেট ড্রাইভ ” শব্দটি নতুন মনে হয়, তবে সলিড স্টেট ড্রাইভ বনাম হার্ড ড্রাইভ  —নিয়ে লেখা আর্টিকেলটি পড়ে ফেলুন।




পিসিআইই এসএসডি
বাজারে সাধারনত যে সলিড স্টেট ড্রাইভ পাওয়া যায় সেটি স্যাটা (SATA) ৩.০ হয়ে থাকে; স্যাটা হচ্ছে এক ধরনের কানেক্টর টাইপ, যেটা হার্ড ড্রাইভকেও কানেক্ট করে থাকে। কিন্তু আমরা অনেকেই জানিনা যে, পিসিআইই (PCIe) টাইপেরও সলিড স্টেট ড্রাইভ পাওয়া যায়; পিসিআইই হলো আরেক ধরনের কানেক্টর, যেটা গ্রাফিক্স কার্ডকে মাদারবোর্ডের সাথে কানেক্ট করে। এই দুই চ্যানেলের দুই টাইপের মধ্যে সবচাইতে বড় পার্থক্য হচ্ছে এদের কানেকশন স্পীড। স্যাটা ৩.০ প্রতিসেকেন্ডে প্রায় ৭৫০ মেগাবাইট পর্যন্ত ডাটা ট্র্যান্সমিট করতে পারে। যদিও এই ডাটা ট্র্যান্সমিট রেট শুনতে খুব একটা বিশাল শোনায় না, কিন্তু তারপরেও এই স্পীডে ডেক্সটপ গেম সহ আলাদা অ্যাপ্লিকেশন গুলো অনেক দ্রুত রান করানো সম্ভব।

অপরদিকে পিসিআইই স্লট ১৫ গিগাবাইট প্রতি সেকেন্ড পর্যন্ত ডাটা ট্র্যান্সমিট করতে সক্ষম; যেখানে আজকের মার্কেটে পাওয়া পিসিআইই টাইপ এসএসডি ১.৫ গিগাবাইট/সেকেন্ড থেকে ৩ গিগাবাইট/সেকেন্ড পর্যন্ত ডাটা ট্র্যান্সমিট করতে পারে। সেখানে পুরাতন স্যাটা টাইপ সলিড স্টেট ড্রাইভ ৫০০-৫৫০ মেগাবাইট/সেকেন্ড পর্যন্ত ডাটা স্পীড রেট সমর্থন করে। তাহলে চিন্তা করে দেখুন, পারফর্মেন্সে কতোটা পার্থক্য এনে দিতে পারে। তবে আপনি যদি সাধারন কম্পিউটার ইউজার হোন, জাস্ট আপনার পিসি এবং অ্যাপ্লিকেশন গুলোকে ফাস্ট রান করাতে চান সেক্ষেত্রে আপনার জন্য স্যাটা টাইপই ঠিকঠাক হবে, কিন্তু ইন্টারপ্রাইজ কাজের জন্য, সার্ভারের জন্য, অথবা আপনি বাড়িতে একটি হোম সার্ভার তৈরি করেছেন, যেখান থেকে সকল ডিভাইজে মিডিয়া, গেমিং শেয়ার করছেন, বা এমন কোন ধরনের কাজ যেখানে হাই ডাটা ট্র্যান্সমিট রেট প্রয়োজনীয়, সেখানে পিসিআইই সলিড স্টেট ড্রাইভ বেশি উপযোগী হবে। আর হ্যাঁ, এখানে বেশি স্পীড পাওয়ার জন্য আপনাকে সাধারনত বেশি টাকা দিতে হবে, স্যাটা টাইপ থেকে পিসিআইই টাইপের দাম প্রায় দ্বিগুণ।

কখনোই ডিফ্র্যাগমেন্ট করবেন না
এইচডিডি’র জন্য ডিফ্র্যাগমেন্ট করানো ঠিক আছে, কেনোনা সেখানে ফিজিক্যাল চাকা থাকে যেখানে ডাটা রাইট হওয়ার সময় বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রাইট হয়, ডিফ্র্যাগমেন্ট করানোর মাধ্যমে ডাটা গুলোকে চেপে একত্রে আনা হয়, যাতে হেড একে দ্রুত অ্যাক্সেস করতে পারে। কিন্তু সলিড স্টেট ড্রাইভের ব্যাপার আলাদা। আপনার কখনোই সলিড স্টেট ড্রাইভকে ডিফ্র্যাগমেন্ট করানো উচিৎ নয়। সলিড স্টেট ড্রাইভে কতোবার ডাটা রাইট করা যাবে তার একটি লিমিট থাকে, কম দামের ড্রাইভ হলে এর লিমিট আরো কম হয়। ডিফ্র্যাগমেন্টিং প্রসেস, ডাটা গুলোকে একত্র করতে অনেক রাইট অপারেশন চালায়, যাতে আপনার এসএসডি’র আয়ুকাল হ্রাস পায়।

হার্ড ড্রাইভের মতো এতে কোন মুভিং পার্টস থাকে না, তাই ড্রাইভের যে সেক্টরেই ডাটা থাক না কেন, ড্রাইভ সেটাকে আরামে রীড অ্যান্ড রাইট করার ক্ষমতা রাখে। তাছাড়া এই ড্রাইভকে এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে, যাতে ডাটা গুলো চারিদিকে সমানভাবে ছড়িয়ে পড়তে পারে। এখানে কোন হেড নেই যেটা ফিজিক্যালি কোথাও মুভ করে তারপর ডাটা অ্যাক্সেস করবে। এতে থাকা কন্ট্রোলার যেকোনো জায়গা থেকে ইনস্ট্যান্ট ডাটা অ্যাক্সেস করতে সক্ষম। আপনি যদি উইন্ডোজ ৭ ব্যবহার করেন তাহলে আপনার অপারেটিং সিস্টেমে ডিফল্টভাবে এসএসডি’র জন্য ডিফ্র্যাগমেন্ট অফ করা রয়েছে। উইন্ডোজ ৭ এর পর সকল মডার্ন উইন্ডোজে এটি ডিফল্টভাবেই অফ থাকে।

উইন্ডোজ এক্সপি, ভিস্তা ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন
যদি আপনার কম্পিউটারে এসএসডি লাগানো থাকে, তবে আমি বলবো অবশ্যই মডার্ন অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করুণ। উইন্ডোজ ৭ এর পর থেকে যেকোনো ভার্সন ব্যবহার করতে পারেন এবং উইন্ডোজ এক্সপি, ভিস্তাকে ত্যাগ করুণ। এই পুরাতন অপারেটিং সিস্টেম গুলো সলিড স্টেট ড্রাইভের জন্য ট্রিম কম্যান্ড সমর্থন করে না; সাধারন হার্ড ড্রাইভে যখন কোন ডাটা ডিলিট করা হয়, এটির শুধু অ্যাড্রেস ডিলিট হয়, কিন্তু ফাইলটি ফিজিক্যালি সেখানে থেকেই যায়, ততোক্ষণ থাকে যতোক্ষণ ড্রাইভকে ওয়াইপ (Wipe) না করা হয় বা আরেকটি ফাইল সেখানে রাইট করা হয়। কিন্তু মডার্ন অপারেটিং সিস্টেমে সলিড স্টেট ড্রাইভের জন্য ট্রিম কম্যান্ড থাকে, যেটাতে কোন ফাইল সম্পূর্ণ রূপে রিমুভ করতে ওভার-রাইট বা ওয়াইপ করার প্রয়োজন নেই। ডিলিট করার ফাইলের সেক্টরটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে ফাকা হয়ে যায়।

যদি অপারেটিং সিস্টেম ট্রিম সমর্থন না করে, সেক্ষেত্রে সলিড স্টেট ড্রাইভেও ফাইলটি সেক্টরে থেকে যায়, শুধু অ্যাড্রেস ডিলিট হয়। এখন নতুন কোন ডাটা সেখানেই রাইট করতে গিয়ে প্রথমে সেক্টরটি ফাকা হয়, তারপর নতুন ফাইল রাইট করে, এতে কিছুটা বেশি সময় লাগে। আর এজন্য পুরাতন অপারেটিং সিস্টেমের সাথে এসএসডি লাগানো থাকলেও আপনার সিস্টেম স্লো কাজ করতে পারে। মডার্ন অপারেটিং সিস্টেমে আগে থেকেই ট্রিম এনাবল করা থাকে, ব্যাস সেখানে হাত দেওয়ার প্রয়োজন নেই।

বেশি রাইট করবেন না
আগেই বললাম, সলিড স্টেট ড্রাইভের একটি নির্দিষ্ট রাইট করার লিমিট থাকে, তাই যদি ড্রাইভের আয়ুকাল বাড়াতে চান, সেক্ষেত্রে বেশি ডাটা রাইট করা থেকে বিরত থাকুন। সলিড স্টেট ড্রাইভকে আমরা সাধারনত অপারেটিং সিস্টেম এবং সফটওয়্যার ধারণ করে রাখার জন্য ব্যবহার করি, কিন্তু সফটওয়্যার গুলো অনেক লগ ফাইল আর অস্থায়ী ফাইল তৈরি করে, আপনি চাইলে সিস্টেমে একটি আলাদা হার্ড ড্রাইভ রাখতে পারেন এবং সেখানে সফটওয়্যার গুলোর অস্থায়ী ফাইল এবং লগ সেভ করার জন্য সেট করে দিতে পারেন। এতে রাইটের পরিমান কমে যাবে।

তাছাড়া সলিড স্টেট ড্রাইভের পাশাপাশি অবশ্যই ম্যাকানিক্যাল হার্ড ড্রাইভ ব্যবহার করুণ। এসএসডি’তে সকল প্রোগ্রাম ইন্সটল করুণ এবং হার্ড ড্রাইভে বড় বড় মিডিয়া ফাইল গুলোকে সেভ করে রাখুন। মিডিয়া ফাইল বা অনেক বড় ফাইল গুলোকে সলিড স্টেট ড্রাইভে রাখা ঠিক না, বরং এমন কোন ফাইলকে রাখা ঠিক না যেটা বারবার অ্যাক্সেস করার দরকার পড়ে। তাই অবশ্যই পিসিতে সলিড স্টেট ড্রাইভের পাশাপাশি মিডিয়া সেভ করার জন্য এইচডিডি ব্যবহার করুণ আর আপনি যদি ল্যাপটপ ব্যবহারকারী হন, যেখানে এসএসডি লাগানো রয়েছে, অবশ্যই এক্সটারনাল হার্ড ড্রাইভ লাগিয়ে সেখানে মিডিয়া স্টোর করুণ।

শেষ কথা
দ্রুত গতির বুটিং, ফাস্ট পিসি, লেস পাওয়ার এবং একসাথে দুইটি ড্রাইভ (এসএসডি + এইচডিডি) ব্যবহার করার সামর্থ্য থাকলে, অবশ্যই আপনার জন্য সলিড স্টেট ড্রাইভ বেস্ট সলিউসন। অনেকে শুধু র্যাম আপগ্রেড করা নিয়ে পাগল হয়ে থাকে, কিন্তু পিসিতে সলিড স্টেট ড্রাইভ লাগিয়ে রিয়াল লাইফ পারফর্মেন্স পরিবর্তন দেখতে পাওয়া সক্ষম। সাথে উপরের আলোচিত বিষয় গুলো মাথায় রাখলে আপনার এসএসডি’র আয়ুকাল আরো বাড়াতে পারবেন আর ফাস্ট পারফর্মেন্স পাওয়া থেকে আপনাকে আর কেউই আটকাতে পারবে না।
ধন্যবাদ ।

0 comments :

Post a Comment

........................ম্যাসেজ......................

জিপি, বংলালিংক ফ্রি নেট এখনো চলছে । আপনি ও ট্রাই করুন আমাদের ফ্রি নেট এর পোস্ট গুলো পড়ুন।