Thursday, June 4, 2015

যেভাবে বড় একটি ফাইলকে Higly Compressed করে ছোট সাইজের বানানো যায়।মাত্র ৩ এম্বির Softwere দিয়ে।


আজ আপনাদের মাঝে নিয়ে হাজির হলাম পোর্টেবল একটি সফটওয়্যার নিয়ে যা দিয়ে আপনি হাইলী কম্প্রেসড করতে পারবেন।শুধু কম্প্রেস নয় আরও কিছু করা যাবে কিন্তু তা নিয়ে আমার টপিকটি নয়।
হাইলী কম্প্রেসড কেন করবেন ?
 মনে প্রশ্ন জাগতেই পারে। আমি ছোট্ট একটা উদাহরন দিচ্ছি।
"আমরা প্রায় দেখতে পাই ইন্টারনেট এ  সার্চ করলে এই রকম লিখা যে=>> ১.৫২জিবির গেমসটি ডাউনলোড করে নিন মাত্র ১৯৯এম্বিতে অথবা অন্য কিছু"

আবার অনেক সময় মুভিও পাওয়া যায় । আবার অনেক সময় আরো চোখে পড়ে এই রকম লিখা =>> ৪জিবির গেমসটি ডাউনলোড করে নিন মাত্র ১২ এম্বিতে।




এখানে কিছু কথা থেকে যায় একজন একটি গেমস ১৯৯ এম্বিতে কম্প্রেস করেছেন অন্যজন আবার একই গেমস ১২এম্বিতে হাইলী কম্প্রেস করেছেন।


কেন করলেন কম্প্রেস?
কারনটা আমার মতে আবার একটা উদাহরন দেইঃ
আপনি অবশ্যই পিসি ব্যবহার করেন নয়তো আমার টিউনটিতে কড়াও নাড়তেন না। যাই হোক মূল কথায় আসি ,
পিসি ব্যবহার করলে অবশ্যই জানেন যে আপনার পিসির হার্ডডিস্ক এর নির্দিস্ট পরিমান ধারন ক্ষমতা থাকে আর আপনি তার মধ্যেই প্রয়োজনীয় ফাইলগুলো রাখেন।এর বাইরে হুমকি দিয়েও একটুসখানি জায়গা বাড়াতে পারবেন না ,
এটা সত্যি কিন্তু আপনি চাইলে বড় ফাইলগুলোর সাইজ কমিয়ে ছোট করতে করতে পারবেন।আর এতে আপনার হার্ডডিস্কটির ধারন ক্ষমতা সাশ্রয় হচ্ছে।আবার অন্য ভাবে একটু ভেবে দেখি আপনি ইন্টারনেটে ফাইল শেয়ার করার জন্য আপলোড করবেন আর ফাইলটির সাইজ ৩জিবি তো কতখানি এম্বি লাগবে যে শেয়ার করবে সে নিজেই ভাল জানবে। তখন যদি ফাইলটির সব ঠিক রেখে সাইজ কমিয়ে ৩০০ এম্বিতে আনা যায় তবে সময় ,টাকা ,শ্রম কিছুটা  হলেও কমিয়ে আনা গেল।

এবার আসি কিভাবে করবো হাইলী কম্প্রেস ?
কম্প্রেস করার জন্য অনেক সফটওয়্যার ব্যবহার হয়ে থাকে। বিশেষ করে কেজিবি আরচিভার দিয়ে তুলনামূলকভাবে সাইজ ছোট করা যায় উপরের উদাহরন ১২এম্বি।কিন্তু কেজিবির সমস্যাটা হলো কম্প্রেস করতে এবং এক্সট্রাক্ট করতে প্রচুর সময় লাগে ।বড় ফাইল হলে দিন থেকে সপ্তাহখানিকও লাগতে পারে নির্ভর করবে পিসির কনফিগারেশন এর উপর তাই এই পদ্ধতি আমার জন্য অন্তত নয় । আর অন্য উদাহরন ছিল ৩০০এম্বি ।সেভেন জিপ দিয়ে কিভাবে করা যায় তা নিয়ে আলোচনা করবো। সেভেন জিপ দিয়ে কম সময়ে ছোট সাইজে পরিনত করা যায় এবং এক্সট্রাক্ট করতেও কম সময় লাগে তাই আমার কাছে এই পদ্ধতিটা সুবিধাজনক মনে হয়েছে।
চলুন কম্প্রেস করে ফেলি বড় ফাইলগুলো।
ছোটখাট একটা অভিজ্ঞতা দেখে নেওয়া যাক।
আমি একটি গেমস এর উপর কাজটি করতে যাচ্ছি। সাথে থাকবেন নয়তো ভয় লাগতে পারে একলাতো।
প্রথমে সফটওয়্যারটি লাগবে ।
ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।
উপরের লিংকে সমস্যা হলে নিচেরটি ব্যবহার করেন।

২য় ডাউনলোড লিংক।

এবার ইন্সট্রল দিন নয়তো সামনে কিভাবে আগাই।
এবার ওপেন  করতে ইন্সট্রল ডিরেক্টরিতে যান।
ওপেন করুন।এবং যে ফাইলটির সাইজ কমাতে চান সেই ফাইলটির ডিরেক্টরিতে যান। উপরে দেখুন যে ফাইলটি নিয়ে কাজ করবো তা এবং তার সাইজ।
যে ফাইলটি কম্প্রেস করতে চান তার উপর রাইটক্লিক করুন >>7zip>>Add archiver এ যান।এবং উপরের মত সব টিক করে ওকে বাটনে প্রেস করুন। আর শেষ না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।

উপরের ছবিগুলোতে দেখুন কিভাবে ধাপে ধাপে ফাইলটির সাইজ কমে আসছে।  এবং অবশেষে ৩.১৯ জিবির ফাইলটিকে ২১৭ এম্বিতে কম্প্রেস করতে সফল হলাম।মিশন সাকসেসফুল।
এবার বিদায় নেবার পালা।

0 comments :

Post a Comment

আপনার ভালো কমেন্টের জন্য লেখক কে আরো সুন্দর পোস্ট লিখতে অনুপ্রেরণা যোগাবে।

........................ম্যাসেজ......................

জিপি, বংলালিংক ফ্রি নেট এখনো চলছে । আপনি ও ট্রাই করুন আমাদের ফ্রি নেট এর পোস্ট গুলো পড়ুন।